সর্বশেষ সংবাদ
Home / খেলাধুলা / জয়ে সিপিএল পর্ব সারলেন মাহমুদউল্লাহ

জয়ে সিপিএল পর্ব সারলেন মাহমুদউল্লাহ

জয় দিয়ে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল) পর্ব শেষ করলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। গ্রুপপর্বে বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টসকে ২ উইকেটে হারিয়েছে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস। জয়ের অভ্যাস নিয়েই দেশে ফিরছেন বাংলাদেশ মিডল অর্ডারের স্তম্ভ।

বাসেতেরেতে টস জিতে আগে ফিল্ডিং নেন সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস অধিনায়ক ক্রিস গেইল। তবে প্রথমে তার সিদ্ধান্তকে অযৌক্তিক প্রমাণ করেন ডোয়াইন স্মিথ ও সানি সোহাল। ৬.২ ওভারে ওপেনিং জুটিতে ৪৫ রান তোলেন তারা। স্মিথকে (২৬) ফিরিয়ে সেই জুটি ভাঙেন তাবরাইজ শামসি। খানিক পরেই সোহালকে (১৭) সাজঘরে ফেরত পাঠান মাহমুদউল্লাহ।

এর পর দ্রুত হাশিম আমলা ও সাই হোপকে ফিরিয়ে গেইলের সিদ্ধান্তকে সার্থক করেন বোলাররা। তবে একপাশ আগলে রাখেন নিকোলাস পুরান। সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দ্রুতলয়ে রান তুলতে থাকেন তিনি। ৩৩ বলে ৩টি করে চার-ছক্কায় ৪৪ রান করে ফেরেন। ততক্ষণে মোটামুটি স্কোরের ভিত্তি পেয়ে যায় বার্বাডোজ।

শেষ দিকে রোস্টন চেজ ও জেসন হোল্ডারের ঝড়ে লড়াইয়ের পুঁজি পায় দলটি। ২৮ বলে ২ চার ও ১ ছক্কায় ৩৮ রানের লড়াকু ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন চেজ। আর অধিনায়ক হোল্ডার খেলেন ১১ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় ৩০ রানের হার না মানা টর্নেডো ইনিংস। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট ১৬৮ রান তোলে বার্বাডোজ ট্রাইডেন্টস। সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের হয়ে ১৬ রান খরচায় ২ উইকেট নেন শামসি। এ ছাড়া ৩৫ রানে ১ উইকেট নেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

জবাবে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসকে শুভসূচনা এনে দেন ক্রিস গেইল ও এভিন লুইস। ওপেনিং জুটিতে তারা তোলেন ৩৭ রান। লুইসকে (১৯) ফিরিয়ে তাদের বিচ্ছিন্ন করেন মোহাম্মদ ইরফান। এর পর এ পাকিস্তানি বোলারের বিধ্বংসী বোলিংয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলে দলটি। দ্রুত ফিরে যান গেইল ও ভ্যান ডার ডুসেন।

পরে ইনিংস মেরামতে রোবটের মতো চেষ্টা করেন মাহমুদউল্লাহ। এর মাঝে ড্রেসিংরুমের পথ ধরেন অ্যান্তন ডেভসিচ ও ইব্রাহিম খলিল। একপর্যায়ে হার মানেন টাইগার ব্যাটারও। ১৯ বলে ১ ছক্কায় ১৫ রান করে ফেরেন তিনি।

৯২ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস। অনেকেই তখন তাদের হার দেখছিলেন। তবে পরে সব হিসাব-নিকাশ পাল্টে দেন ফ্যাবিয়ান অ্যালেন। বেন কাটিংয়ের সঙ্গে সপ্তম উইকেটে ৫২ রানের জুটি গড়ে জয়ের ভিত গড়েন তিনি। ১৪ বলে ১১ রান করে কাটিং বিদায় নিলেও দলের জয় নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়েন অ্যালেন। তার অনবদ্য ব্যাটিংয়ে ২ বল হাতে রেখে ২ উইকেটের জয় পায় গেইল বাহিনী। ৩৪ বলে ৬ চার ও ৪ ছক্কায় ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন এ ডানহাতি ব্যাটার। বার্বাডোজের হয়ে ৩ উইকেট শিকার করেন ইরফান।

এ জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে এলো সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস। ম্যাচসেরার পুরস্কার উঠেছে ফ্যাবিয়ান অ্যালেনের হাতে।

এর সঙ্গে টানা দুই জয়ে সিপিএলের এবারের আসর শেষ হলো মাহমুদউল্লাহর। গেল ম্যাচে ব্যাট হাতে ঝড় তুলে দলের প্লে-অফে খেলা নিশ্চিত করেন। এবার অলরাউন্ডিং পারফরম্যান্সে জয়ে অবদান রাখলেন। দরজায় কড়া নাড়ছে এশিয়া কাপ। তাতে অংশ নিতে প্লে-অফের আগেই বাংলাদেশে ফিরছেন মিস্টারকুল। ৭ আগস্ট দেশে ফেরার কথা তার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

লিওঁয়ের জালে পিএসজির গোলোৎসব, এমবাপ্পের ১ হালি

আবারও স্বমহিমায় উজ্জ্বল কিলিয়ান এমবাপ্পে। পায়ে ফোটালেন ফুটবলের শৈল্পিক ফুল। দুর্দান্ত ফুটবল ...

Skip to toolbar