সর্বশেষ সংবাদ
Home / আন্তর্জাতিক / পাকিস্তানের বেলুচিস্তান হাইকোর্টের (বিএইচসি) প্রথম নারী প্রধান বিচারপতি হলেন সাইয়েদা তাহিরা সফদার। শনিবার বেলুচিস্তান গভর্নর ভবনে তিনি শপথগ্রহণ করেন। মুখ্যমন্ত্রী জ্যাম কামাল খানের উপস্থিতিতে শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন গভর্নর মোহাম্মদ খান আচাখজেই। এতে উচ্চ আদালতের বিচারক ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন। সাবেক বিচারপতি মোহাম্মদ নূর মুসকানজেইয়ের পর তাহিরা সফদার ছিলেন বেলুচিস্তান হাইকোর্টের সবচেয়ে জ্যেষ্ঠ আইনজীবী। বেলুচিস্তানের দেওয়ানি আদালতের প্রথম নারী বিচারক হিসেবেও নিয়োগ পান তিনি। ২০০৯ সালের ১১ মে স্থায়ী বিচারক হিসেবে শপথগ্রহণ করেন তিনি। ওই একই বছরের সেপ্টেম্বরে হাইকোর্টের অতিরিক্ত বিচারক হিসেবে তিনি নিয়োগ পান। বিচারক হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর থেকে তিনি ১৫৭টি সাংবিধানিক পিটিশনের শুনানি গ্রহণ করেছেন। তিনি বেলুচিস্তান সার্ভিস ট্রাইব্যুনালেরও চেয়ারপারসনের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৫৭ সালের ৫ অক্টোবর তিনি দেশটির কোয়েটায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮০ সালে তিনি কোয়েটা ইউনিভার্সিটি অব ল কলেজ থেকে আইনের ডিগ্রি অর্জন করেন।

পাকিস্তানের বেলুচিস্তান হাইকোর্টের (বিএইচসি) প্রথম নারী প্রধান বিচারপতি হলেন সাইয়েদা তাহিরা সফদার। শনিবার বেলুচিস্তান গভর্নর ভবনে তিনি শপথগ্রহণ করেন। মুখ্যমন্ত্রী জ্যাম কামাল খানের উপস্থিতিতে শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন গভর্নর মোহাম্মদ খান আচাখজেই। এতে উচ্চ আদালতের বিচারক ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন। সাবেক বিচারপতি মোহাম্মদ নূর মুসকানজেইয়ের পর তাহিরা সফদার ছিলেন বেলুচিস্তান হাইকোর্টের সবচেয়ে জ্যেষ্ঠ আইনজীবী। বেলুচিস্তানের দেওয়ানি আদালতের প্রথম নারী বিচারক হিসেবেও নিয়োগ পান তিনি। ২০০৯ সালের ১১ মে স্থায়ী বিচারক হিসেবে শপথগ্রহণ করেন তিনি। ওই একই বছরের সেপ্টেম্বরে হাইকোর্টের অতিরিক্ত বিচারক হিসেবে তিনি নিয়োগ পান। বিচারক হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর থেকে তিনি ১৫৭টি সাংবিধানিক পিটিশনের শুনানি গ্রহণ করেছেন। তিনি বেলুচিস্তান সার্ভিস ট্রাইব্যুনালেরও চেয়ারপারসনের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৫৭ সালের ৫ অক্টোবর তিনি দেশটির কোয়েটায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৮০ সালে তিনি কোয়েটা ইউনিভার্সিটি অব ল কলেজ থেকে আইনের ডিগ্রি অর্জন করেন।

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ইরান অপরিশোধিত তেল রফতানি অব্যাহত রাখছে।

মঙ্গলবার তেল কোম্পানিগুলোর সঙ্গে এক বৈঠকে রুহানি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র নতুন করে নিষেধাজ্ঞা দেয়ার পরও ইরান তার তেল রফতানিতে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করেছে।

প্রেসিডেন্ট রুহানি স্টেট টিভির এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আমরা তেল উৎপাদন ও রফতানি অব্যাহত রাখব। এ নিয়ে মোকাবেলা করার ক্ষমতা আমাদের রয়েছে।

পশ্চিমা শক্তি পরমাণু চুক্তি থেকে বের হয়ে ইরানের প্রতি নভেম্বরে নতুন করে তেল রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল। তবে স্পষ্ট নয়, যুক্তরাষ্ট্রের মিত্ররা ইরানের তেল আমদানি না করে থাকবে।

আমরা সব উপায়ে পণ্য ও রফতানি উভয়ই অব্যাহত রাখব বলে রুহানি রাষ্ট্র টিভি সম্প্রচারে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেন, তেল মুখোমুখি এবং প্রতিরোধের সম্মুখভাগে রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

অবশেষে মি টু ঝড়ে মন্ত্রিত্ব ছাড়লেন এমজে আকবর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রটে যাওয়া খবর অবশেষে সত্য হল। ৩ দিন আগের ...

Skip to toolbar