সর্বশেষ সংবাদ
Home / বিনোদন / বহুরূপী আমির খান

বহুরূপী আমির খান

শুরুতে দেখা গেল সিনেমার মোশন পোস্টার। তারপর দেখা গেল অমিতাভ বচ্চনের চরিত্র। পর্যায়ক্রমে হাজির হলেন সানা শেখ, লয়েড ওয়েন, ক্যাটরিনা কাইফ। সর্বশেষ এলেন আমির খান। তাও একেবারে ব্যতিক্রমী হয়ে।

যদিও বরাবরই ব্যতিক্রম হয়েই উপস্থিত হন আমির খান। কিন্তু ‘থাগস অব হিন্দুস্তান’ ছবিতে আমির খানের লুক কেমন হবে সেটা আন্দাজ করতে পারলেও স্পষ্ট করছিলেন না কেউই। পোস্টার এবং সম্প্রতি প্রকাশিত ট্রেলারের মধ্যেই প্রকাশ হল বহুরূপী আমির খানের নতুন লুক।

যেখানে দেখা গেছে, শহরে এসেছে নতুন ফিরিঙ্গি। মাথায় কোঁকড়া চুল, লম্বা টুপি পরা। চোখে লাল চশমা। গায়ে নীল রঙের ব্লেজার। কোমরে বাঁধা লাল রঙের বোতল।

তেজি ঘোড়ায় বসে লাগাম ধরা হাতেই দুরবিন। দৃষ্টি দূর সীমান্তে। আরেক হাত দিয়ে স্যালুট করার ভঙ্গি। মুখের হাসিতে রহস্য। ফিরিঙ্গির সেই হাসির রহস্য বোঝা বড় দায়!

ঠিক এভাবেই ‘থাগস অব হিন্দুস্তান’ ছবির গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রগুলো প্রকাশ করলেন আমির খান। প্রতিটি চরিত্র বৈচিত্র্যময়। মুক্তির লক্ষ্য চলতি বছরের দিওয়ালি। তারিখও ঠিক হয়ে গেছে। ৮ নভেম্বর। সবকিছুই নিখুঁত। সময় মতোই এগোচ্ছে।

কিন্তু মি. পারফেকশনিস্ট আমির খান এবার পড়েছেন বিপদে। সমালোচনা ঘিরে ধরেছে তাকে। তাও আবার সদ্য প্রকাশিত ট্রেলার নিয়ে। ট্রেলার দেখে বলিউডের সিনেমাপ্রেমীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছেন।

অনেকে বলছেন, এটি নাকি হলিউডের ‘পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান’ ছবিকে নকলের ব্যর্থ চেষ্টা করা হয়েছে। এমনকি সঙ্গীতও নাকি নকল! যদিও বিষয়টি নিয়ে আমির কিংবা ছবি সংশ্লিষ্ট কারোই বক্তব্য এখনও আসেনি। শুভাকাক্সক্ষীরা আশা করছেন শিগগিরই তারা এর ব্যাখ্যা শুনতে পাবেন। নিশ্চয়ই আমির খান কোনো কারণে পাইরেটসকে ফলো করেছেন।

কারণ, মি. পারফেকশনিস্টের কাছে সব কিছুই নিখুঁত হওয়া চাই। সুতরাং নকলেরও অভিযোগ যে শেষ পর্যন্ত ধোপে টিকবে না সেটা আমিরের মুখে কুলুপ এঁটে থাকার মধ্য দিয়েই স্পষ্ট।

ছবির শুটিং নিয়েও বেজায় গোপনীয়তা ছিল। শুটিং হয়েছে ভারত, মাল্টা ও থাইল্যান্ডে। বিশেষ করে থাইল্যান্ডের জঙ্গলে নাকি শিহরণ জাগানো অ্যাকশন দৃশ্যে অংশ নিয়েছেন অমিতাভ, আমির ও সানা।

ছবির কলাকুশলীদের কড়া নির্দেশ দেয়া হয়েছিল, শুটিংয়ের কোনো খবর যেন বাইরে ফাঁস না হয়ে যায়। এ ব্যাপারে প্রযোজনা সংস্থা কঠোর গোপনীয়তা অবলম্বন করেছে। এর আগে মুম্বাইয়ে শুটিং চলার সময় ছবিতে আমিরের লুক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ায় ইউনিটের লোকজনের ওপর বেজায় নাখোশ হয়েছিলেন আমির খান।

১৭৯৫ সালের প্রেক্ষাপটে এ ছবির গল্প তৈরি হয়েছে। ব্রিটিশরা ব্যবসা করতে এসে ভারতবর্ষের শাসনভার নিজেদের হাতে তুলে নিয়েছে। কিন্তু একদল দস্যু কিছুতেই ব্রিটিশ শাসন মানতে নারাজ। তারা ব্রিটিশ রাজের আওতায় পড়তে চায় না।

এই দস্যুরাই হচ্ছে ‘থাগস’। এদের নিয়েই ছবির গল্প এগিয়েছে। ছবিতে দলনেতার চরিত্রে রয়েছেন অমিতাভ বচ্চন। নাম তার খোদাবক্স। সেই দলে এক ক্ষিপ্র তিরন্দাজ মেয়ে জাফিরনাও আছে।

ফাতিমা সানা শেখ রয়েছেন এ চরিত্রে। সব মিলিয়ে অদম্য টিম! কিন্তু ব্রিটিশরা ধুরন্ধর। খোদাবক্সের যুদ্ধ পরিকল্পনা জানার জন্য তারা আশ্রয় নেয় ফিরিঙ্গির। সেই ফিরিঙ্গি আমির খান। নাম তার আমির আলী। সে নিজেও একজন ঠগী।

ফিরিঙ্গিকে দস্যুদের জাহাজে ভিড়িয়ে দেয় ব্রিটিশরা। মিশনে নেমে সুরাইয়া চরিত্রের ক্যাটরিনাও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে আমির খানের কাছে। এগিয়ে যায় সিনেমার গল্প।

মূলত ফিলিপ মিডোস টায়লরের উপন্যাস ‘কনফেশন্স অব এ থাগ’-এর ওপর ভিত্তি করেই এ ছবির কাহিনী বিস্তৃত হয়েছে। ঠগদের ইতিহাস ১৭ থেকে ১৮ শতকের। এই সময়ের মধ্যে তারা জাতি হিসেবে আতঙ্ক ছড়িয়ে ফেলে ভারতবর্ষে।

মানুষের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করে তাদের মন জয় করে। তারপর সময় বুঝে কেড়ে নেয় সর্বস্ব। ‘ঠগী’ শব্দটি এসেছে সংস্কৃত ‘ঠগ’ থেকে, যার অর্থ প্রতারক।

এ ছবির মাধ্যমে প্রথমবারের মতো আমির খান ও অমিতাভ বচ্চন একসঙ্গে অভিনয় করেছেন। ছবির বাজেট ৩০০ কোটি রুপি। বিজয় কৃষ্ণের পরিচালনায় এ ছবিটি প্রযোজনা করেছে যশরাজ ফিল্মস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সাংবাদিক পরীমণির প্রথম চমক

ঢাকাই ছবির এই সময়ের জনপ্রিয় নায়িকা পরীমণি এখন সাংবাদিক। তা জানে অনেকেই। ...

Skip to toolbar