সর্বশেষ সংবাদ
Home / আন্তর্জাতিক / বুলগেরিয়ায় সাংবাদিককে ধর্ষণ ও হত্যা, দ্রুত তদন্ত চায় ইউরোপ
This image grab taken from TVN television on October 7, 2018, shows Bulgarian television journalist Viktoria Marinova at an undisclosed location in Bulgaria. - A television journalist has been brutally murdered in Bulgaria's northern town of Ruse, prosecutors said October 7, with the case drawing international condemnation. The body of 30-year-old Viktoria Marinova, identified by authorities only by her initials, was found on October 7 in a park, Ruse regional prosecutor Georgy Georgiev said. (Photo by HO / TVN.BG / AFP) / RESTRICTED TO EDITORIAL USE - MANDATORY CREDIT "AFP PHOTO / TVN TELEVISION" - NO MARKETING NO ADVERTISING CAMPAIGNS - DISTRIBUTED AS A SERVICE TO CLIENTS

বুলগেরিয়ায় সাংবাদিককে ধর্ষণ ও হত্যা, দ্রুত তদন্ত চায় ইউরোপ

বুলগেরিয়ায় সাংবাদিক ভিক্টোরিয়া মারিনোভাকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনার দ্রুত তদন্তের দাবি জানিয়েছে ইউরোপীয় কমিশন।

প্রসিকিউটররা বলেন, ৩০ বছর বয়সী এ সাংবাদিককে ধর্ষণ, বেধড়ক মারধর ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। শনিবার রুজে দানিউব নদীর কাছ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ইউরোপীয় কমিশন বলেছে, মুক্ত গণমাধ্যম ছাড়া গণতন্ত্র হতে পারে না। দায়ীদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে আমরা তদন্তের দাবি জানিয়েছে।

চলতি বছরে রিপোর্টার্স উইদাউট বার্ডারসের গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সূচকে ১৮০ দেশের মধ্যে ১১১তম অবস্থানে রয়েছে বুলগেরিয়া।

এই নারী সাংবাদিককে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনা নিয়ে ইউরোপজুড়ে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

মারিনোভা সম্প্রতি টেলিভিশনে অনুসন্ধানী প্রতিবেদনবিষয়ক একটি টকশোর উপস্থাপনায় ছিলেন। তাকে নিয়ে গত এক বছরে ইউরোপে তিন প্রতিবেদক খুন হলেন, যা মহাদেশজুড়ে সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিয়েও উদ্বেগ বাড়াচ্ছে বলে ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনের বরাতে জানিয়েছে এনডিটিভি।

সাংবাদিক মারিনোভাকে হত্যার কারণ জানা যায়নি; ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনার সঙ্গে মারিনোভার পেশাগত কাজের কোনো সম্পর্ক আছে কিনা তাও স্পষ্ট নয় বলে জানিয়েছে বুলগেরিয়ান কর্তৃপক্ষ।

সোমবার ব্রাসেলসে ইউরোপিয়ান কমিশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফ্রান্স টিমারমানস বলেন, ফের একজন সাহসী সাংবাদিক সত্যের জন্য ও দুর্নীতির বিরুদ্ধের লড়াইয়ের মধ্যেই চলে গেলেন।

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) বুলগেরীয় কর্তৃপক্ষের তদন্তে সাহায্য করারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। বুলগেরিয়ার কর্মকর্তারা জানান, মারিনোভার খুনের সঙ্গে তার পেশার কোনো যোগসূত্র এখনও পাননি তারা।

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ম্লাদেন মারিনভ বলেন, এটি ধর্ষণ ও খুন।

যে পার্কে মারিনোভাকে হত্যা করা হয়, সেটি একটি পাগলাগারদের লাগোয়া বলে সোমবার জানিয়েছে বুলগেরিয়ার গণমাধ্যমগুলো। সাংবাদিকের ওপর হামলার পেছনে ওই পাগলাগারদের কোনো রোগী জড়িত কিনা কর্তৃপক্ষ তাও খতিয়ে দেখছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রাজপরিবারে আসছে নতুন অতিথি

ব্রিটিশ রাজপরিবারের আসছে নতুন অতিথি। আগামী বসন্তে প্রথম সন্তান জন্ম দেয়ার আশা ...

Skip to toolbar