সর্বশেষ সংবাদ
Home / আন্তর্জাতিক / অবশেষে মি টু ঝড়ে মন্ত্রিত্ব ছাড়লেন এমজে আকবর

অবশেষে মি টু ঝড়ে মন্ত্রিত্ব ছাড়লেন এমজে আকবর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে রটে যাওয়া খবর অবশেষে সত্য হল। ৩ দিন আগের পদত্যাগ নাটক শেষে বুধবার সত্যিই সত্যিই পদত্যাগ করলেন ভারতের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও সাংবাদিক এমজে আকবর।

‘#মি টু’ আন্দোলনে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠায় পদত্যাগ করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এদিন দুপুরে তার পদত্যাগপত্রটি পাঠিয়েছেন ৬৫ বছর বয়সী আকবর।

রোববার আকবর পদত্যাগ করেছেন বলে ভারতের বহু গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়। সে সময় ইমেইলে পদত্যাগপত্র দিয়েছিলেন তিনি। সেটি প্রধানমন্ত্রী গ্রহণ করবেন কিনা তা নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়। এবার খামে ভরে পদত্যাগপত্র দিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

পদত্যাগপত্রে এমজে আকবর লিখেছেন, ‘আমি যখন ব্যক্তিগতভাবে আদালতে বিচার পাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তখনই মনে হয়েছে আমার পদত্যাগ করা উচিত। আমার বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগতভাবে লড়াই করতে চাই। এজন্য আমি পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিচ্ছি।’

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, ২০ জনের বেশি নারীর অভিযোগ, সাংবাদিকতা পেশায় থাকার সময় আকবর তাদের যৌন হেনস্থা করেছিলেন। একাধিক নারী যৌন হয়রানির অভিযোগ করার পর আকবর পদত্যাগ করতে যাচ্ছেন বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবর রটে।

রোববার দিনভর এ নিয়ে চরম নাটকীয়তা চলে। তখন ইমেইলের মাধ্যমে পদত্যাগপত্র দিলেও তা গ্রহণ করেননি প্রধানমন্ত্রী মোদি। এবার লিখিত পদত্যাগপত্র দিয়ে ইস্তফা দিয়েছেন আকবর।

গত ২ সপ্তাহ ধরে #মি টু ইন্ডিয়া আন্দোলনে একের পর এক নারী কর্মক্ষেত্রে যৌন নিপীড়নের শিকার হওয়া নিয়ে মুখ খুলেছেন। আকবরের বিরুদ্ধে প্রথমে মুখ খোলেন জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক প্রিয়া রামানি।

৮ অক্টোবর ১ বছর আগে ‘ভোগ ইন্ডিয়া’তে নিজের লেখা আর্টিকেল ‘টু দ্য হার্ভি ওয়েইনস্টেইন অব দ্য ওয়ার্ল্ড’ রিটুইট করেন প্রিয়া। ওই লেখায় তিনি কর্মক্ষেত্রে প্রথমবারের মতো যৌন অসদাচরণের শিকার হওয়ার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন।

যদিও আর্টিকেলে তিনি কারও নাম উল্লেখ করেননি। কিন্তু লেখাটি রিটুইট করার সময় তিনি আকবরের নাম নেন। সোমবার রামানির বিরুদ্ধে মানহানি মামলা করেন আকবর।

দিল্লির পাতিয়ালা কোর্টে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৯৯ (মানহানি) ধারা ও ৫০০ (মানহানির শাস্তি) ধারায় এ মামলা করা হয়েছে। ৯৭ আইনজীবীর একটি দলকে মাঠে নামিয়েছেন আকবর।

এদিকে, বুধবার সকালে আকবরের পদত্যাগ চেয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদি ও রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে চিঠি লেখে নারী সাংবাদিককের একটি সংগঠন।

ফাউন্ডেশন অফ মিডিয়া অ্যান্ড ব্রিহান মুম্বাই ইউনিয়ন অফ জার্নালিস্ট নামে ওই সংগঠন রামানির বিরুদ্ধে আকবরের করা মানহানি মামলা প্রত্যাহারের দাবিও জানায়।

ওই চিঠিতে তারা লিখেছেন, ‘ক্ষমতাশালীরা মানহানির মামলা করে কণ্ঠরোধের চেষ্টা করে থাকেন। এটা আসলে নারীদের চুপ করিয়ে দেয়ার প্রয়াস মাত্র।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মুসলিম তরুণীর ‘মিস এশিয়া’ মুকুট জয়

৫০ বছরের মধ্যে এই প্রথম আন্তর্জাতিক সুন্দরী প্রতিযোগিতায় শরিফা আকিল নামে এক ...

Skip to toolbar