সর্বশেষ সংবাদ
Home / বিনোদন / শীতে ত্বক-ফাটার ঘরোয়া ৫ প্রতিকার

শীতে ত্বক-ফাটার ঘরোয়া ৫ প্রতিকার

প্রকৃতিতে শীত জেঁকে বসেছে। সঙ্গী করে নিয়ে এসেছে কিছু মৌসুমি সমস্যা। এ সময়ে ত্বকের সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে ফেটে যাওয়া।

যাদের ত্বক শুষ্ক তারা এ সমস্যায় বেশি ভোগেন। বাইরে ত্বকের আর্দ্রতার অভাবে শীতকালে ত্বক ফেটে যায়। চেহারায় কাজ করে রুক্ষতা। এক ধরনের বিশ্রি পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়।

ত্বকে দেখা দেয় সাদা দাগ ও নানান সংক্রমণ। ত্বক ফাটা থেকে বাঁচতে এই সময়ে শুষ্ক ত্বক আর্দ্র রাখা জরুরি।

শুষ্ক ত্বকের সমস্যা মোকাবেলা করার জন্য ঘরোয়া কিছু প্রতিকার নিচে দেয়া হল-

* দই: আপনার ত্বকে দই প্রয়োগ করলে মুখে ময়শ্চারাইজারের পরিমাণ ঠিক থাকে এবং ব্রেকআউটের বিরুদ্ধেও তা লড়াই করতে পারে। মুখে দই প্রয়োগ করলে তা আপনার ত্বক নরম এবং ময়শ্চারাইজ করতে সহায়তা করে।

এটি আপনার ত্বককে একটি মসৃণ কাঠামো দেয়। আপনার ত্বকে সাদা দই প্রয়োগ করুন এবং প্রায় ১৫ মিনিটের জন্য ছেড়ে দিন। তারপর উষ্ণ জল দিয়ে ধুয়ে দিন। শুষ্কতা হ্রাস করতে সপ্তাহে কয়েকবার বা প্রতিদিনই দই প্রয়োগ করতে পারেন।

* মধু: শুষ্ক ত্বকের জন্য আরেকটি দুর্দান্ত ঘরোয়া প্রতিকার হল মধু। মধু খুবই ময়শ্চারাইজিং ও শুষ্কতা কমিয়ে ত্বক নরম করতে সাহায্য করবে। মধুতে অনেক ভিটামিন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। এবং এতে অ্যান্টিমাইকোবিয়াল ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্যও রয়েছে।

আপনি ফেস মাস্ক হিসেবে কাঁচা মধু প্রয়োগ করতে পারেন। শুকিয়ে গেলে উষ্ণ জল দিয়ে ধুয়ে নিন। সপ্তাহে তিনবার মধু ব্যবহার করলে আপনার ত্বকের শুষ্কতা ও সাদা দাগ হ্রাস পাবে।

* নারিকেল তেল: আমরা সবাই নারিকেল তেলের বিভিন্ন স্বাস্থ্য উপকারিতা জানি। শুষ্ক ত্বকের চিকিৎসা করতে দুর্দান্ত কাজ করে প্রাকৃতিক এই উপাদান।

নারিকেল তেল শুষ্ক ত্বকের চিকিৎসার জন্য পেট্রোলিয়াম জেলি হিসেবে নিরাপদ ও কার্যকর। এই তেল উল্লেখযোগ্যভাবে ত্বকের হাইড্রেশন উন্নত করে এবং ত্বকে লিপিডের (চর্বি) সংখ্যা বৃদ্ধি করে।

* ওটমিল: ওটমিল এমন এক প্রাকৃতিক উপাদান, যা শুষ্ক ত্বকের চিকিৎসার জন্য উপকারী। গোসলের সময় গুঁড়ো ওটমিল যোগ করলে বা ওটমিলযুক্ত ক্রিম ব্যবহার করলে শুষ্ক ত্বকের উপশমে সাহায্য করতে পারে। কাঁচাদুধ ও ওট মিশিয়ে প্যাকও বানাতে পারেন।

* দুধ: যদি ত্বকে চুলকানি বোধ করেন এবং আপনার ত্বকে সাদা দাগ দেখতে পান, তবে ঠাণ্ডা দুধ ব্যবহার করতে পারেন। কাঁচা দুধ একটি কাপড় ভিজিয়ে তা পাঁচ থেকে ১০ মিনিটের জন্য আপনার ত্বকে প্রয়োগ করুন। দুধের ল্যাকটিক অ্যাসিড আপনার শুষ্ক ত্বকের জন্য বিস্ময়করভাবে কাজ করে।

যদি ত্বকে চুলকানি বোধ করেন এবং আপনার ত্বকে সাদা দাগ দেখতে পান, তবে ঠাণ্ডা দুধ ব্যবহার করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নির্বাচনে তারকা ভাবনা

আসছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু হোক এমন প্রত্যাশা করি। কারণ, এবারের ...

Skip to toolbar