সর্বশেষ সংবাদ
Home / আন্তর্জাতিক / মিয়ানমারকে চাপ প্রয়োগে নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাব

মিয়ানমারকে চাপ প্রয়োগে নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাব

রোহিঙ্গাদের ওপর গণহত্যা চালিয়েছে মিয়ানমার। দেশটির সেনাবাহিনীর পরিকল্পিত অভিযানেই ৭ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশে পালিয়ে গেছে।

এতে সৃষ্টি হয়েছে এক অমানবিক শরণার্থী সংকট। এই সংকট সমাধানে মিয়ানমারকে অবশ্যই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সহযোগিতা করতে হবে। বাংলাদেশের পাশাপাশি জাতিসংঘের সঙ্গে কাজ করতে হবে দেশটিকে। সংকট নিরসনে মিয়ানমারকে জাতিসংঘের সঙ্গে মিলে কাজ করতে চাপ দিতে দেশটির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়ার কথা ভাবছে নিরাপত্তা পরিষদ।

মঙ্গলবার এ বিষয়ে একটি প্রস্তাব তোলা হয়েছে। রাখাইন থেকে পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের নিরাপদ-মর্যাদাপূর্ণ ও স্বেচ্ছামূলক প্রত্যাবাসন নিশ্চিতে নভেম্বরে যুক্তরাজ্যের উদ্যোগে ওই প্রস্তাব আনা হয়। তবে বরাবরের মতোই চীন ও রাশিয়ার প্রতিনিধিরা খসড়াটি নিয়ে আলোচনায় উপস্থিত থাকছেন না।

সোমবার বেশ কয়েকটি দেশের কূটনীতিকদের বরাতে এ খবর জানিয়েছে রয়টার্স। এদিকে রাখাইনে ফের উন্মুক্ত ও সহজ প্রবেশাধিকার চেয়েছে জাতিসংঘের উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি) এবং শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর। এক যৌথ ঘোষণায় রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কিছু প্রকল্প বাস্তবায়নের স্বার্থে ‘আরও কার্যকর ব্যবস্থা’ গ্রহণে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সংস্থা দুটি।

রোহিঙ্গা সংকটে সমাধানে ক্রমেই সোচ্চার হচ্ছে বিশ্ব সম্প্রদায়। জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশনের পর চলতি সপ্তাহেই প্রথমবারের মতো রোহিঙ্গা নির্যাতনকে গণহত্যা বলে স্বীকৃতি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এবার সংকট নিরসনে দেশটিকে ‘যথাযথ ও কার্যকর পদক্ষেপ’ নেয়ার আহ্বান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে ২৩ রোহিঙ্গা সংগঠন। গণহত্যা চালানোয় মিয়ানমার ও দেশটির সেনাবাহিনীর ওপর অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানিয়েছে তারা। আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের আওতায় নিয়ে ঘটনার যথাযথ তদন্ত ও সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিতে যুক্তরাষ্ট্রের কার্যকর পদক্ষেপ প্রত্যাশা করা হয়েছে বিবৃতিতে।

মঙ্গলবার নিরাপত্তা পরিষদে তোলা খসড়া ওই প্রস্তাবে মিয়ানমারকে পার্শ্ববর্তী বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া ৭ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থীকে ফিরিয়ে নেয়ার সময়সীমা বেঁধে দেয়া ও জবাবদিহিতার কথা বলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কূটনীতিকরা। কূটনীতিকরা জানান, সংকট নিরসনে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি দেখাতে না পারলে নিরাপত্তা পরিষদ মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়ার কথা ভাবতে পারবে, প্রস্তাবের খসড়ায় এমন সতর্ক বার্তাও থাকতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ইরানে গৃহযুদ্ধ লাগাতে চায় যুক্তরাষ্ট্র: খামিনেই

ইরানে একটি গৃহযুদ্ধ লাগিয়ে দিতে চায় যুক্তরাষ্ট্র বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির সর্বোচ্চ ...

Skip to toolbar