তাসনিমের চলে যাওয়া কাঁদাচ্ছে সবাইকে

কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার শহরমূলে মামার বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) দুপুরে হাওরের পানিতে ডুবে কিশোরগঞ্জ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাসনিমুর রহমান (১৩) এর মৃত্যুতে কাঁদছে তার স্বজনেরা। কাঁদছে তার বন্ধু-সহপাঠীসহ সবাই।

তাসনিমুর রহমান এর এমন মর্মান্তিক মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না কেউই। কিশোরগঞ্জ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির মেধাবী শিক্ষার্থী তাসনিমুর রহমান এর মৃত্যুতে শোকাহত তার বিদ্যালয়ের শিক্ষকেরাও।

কিশোরগঞ্জ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এ.কে.এম আবদুল্লাহ জানান, তাসনিমুর রহমান বিদ্যালয়ের একজন মেধাবী ছাত্র ছিল। সে বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির প্রভাতী ‘খ’ শাখায় তার রোল নং ৩।

প্রধান শিক্ষক এ.কে.এম আবদুল্লাহ বলেন, এ মর্মান্তিক দূর্ঘটনায় কিশোরগঞ্জ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় পরিবার গভীরভাবে শোকাহত। আল্লাহপাক তাকে জান্নাতুল ফিরদাউস নসীব করুন এবং তার মা-বাবা সহ নিকট আত্মীয়দের ধৈর্য্যধারণের তাওফিক দিন। আমিন।

তাসনিমুর রহমান কিশোরগঞ্জ শহরের শোলাকিয়া এলাকার বাসিন্দা এবং ওয়ালী নেওয়াজ খান কলেজের প্রদর্শক মো. মতিউর রহমানের ছেলে।

পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্র জানায়, স্কুল ছাত্র তাসনিমুর রহমান পরিবারের লোকজনের সাথে নিকলী উপজলার শহরমূলে মামার বাড়িতে বেড়াতে যায়।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) দুপুরে তাসনিমুর স্থানীয় শিশুদের সঙ্গে খেলতে গিয়ে বাড়ির পাশের হাওরের পানিতে গোসল করতে নামে। পরে প্রবল স্রোতে সে পানিতে তলিয়ে যায়।

স্থানীয়দের সহযোগিতায় স্বজনরা ঘটনাস্থল থেকে কিছু দূরে ভাসমান অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করেন।

এ ঘটনায় পরিবার এবং স্বজনদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকঃ শারমিন আক্তার, প্রকাশকঃ মোঃ এনামুল হক, হুজাইফা এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড কর্তৃক চৌধুরী মল ৪৩, শহীদ নজরুল ইসলাম সড়ক (হাটখোলা রোড), টিকাটুলি, ঢাকা-১২০৩ হতে প্রকাশিত। ফোন-ফ্যাক্স: ৭১২৫৩৮৬। । ই-মেইল: tatkhonik@gmail.com