পেঁপে চাষে সফল হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন শামীম

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে লিচু বাগানে পেঁপের চাষ করছেন শামী উল ইসলাম শামীম। আর এক সপ্তাহ পর প্রায় লাখ টাকার পেঁপে বিক্রি করবেন তিনি।

ঘোড়াঘাটের উসমানপুর হিলি মোড়ে সাড়ে ৫ বিঘা জমিতে প্রথমে লিচু বাগান করেন শামীম। বাড়তি আয়ের আশায় ওই বাগানেই শুরু করেন পেঁপের চাষ।

শামীম জানান, প্রতিটি পেঁপে গাছে আশানুরূপ পেঁপে ধরেছে। পেঁপে চাষে বাড়তি তেমন কোনো খরচ হয় না। প্রথমে জমি তৈরি করতে গবর, টিএসপি সার মাটিতে মেশানো হয়েছে। গাছ লাগানোর ৯০ থেকে ১০০ দিনের মধ্যে পেঁপে বিক্রি করা সম্ভব। পেঁপে চাষে সফল হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন শামীম।

তিনি বলেন, ‘লিচু বাগান নতুন করেছি। কিন্তু বাগান থেকে ফল পেতে এখনো সময় লাগবে। প্রতি বছর প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা খরচ হবে লিচু বাগানে। লিচু গাছগুলো ছোট তাই তিন মাস আগে এর ফাঁকে ফাঁকে ৬০০ পেঁপের গাছ লাগিয়েছি। প্রতিটি গাছে ভালো পেঁপে ধরেছে। পেঁপের খরচ বাবদ প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। আশা করছি, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে গাছ থেকে পেঁপে পাড়া শুরু করবো। ১৮ থেকে ২০ টাকা দরে পেঁপে বিক্রি হচ্ছে। প্রথম চালানে প্রায় লাখ খানেক টাকার পেঁপে বিক্রি করতে পারব বলে আশা করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাগানের সঙ্গেই আমার বাড়ি। আমি নিজেই বাগানের কাজ করি। আমি প্রতিনিয়ত উপজেলা কৃষি অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ করি এবং তাদের দেওয়া পরামর্শ অনুযায়ী একই স্থানে দু’ফসলী বাগানের পরিচার্য করি।’

এ বিষয়ে ঘোড়াঘাট উপজেলা কৃষি অফিসার এখলাছ আহমেদ রাইজিংবিডিকে জানান, উপজেলায় মোট ১০ হেক্টর জমিতে পেঁপের চাষ হয়েছে। উসমানপুরের হিলি মোড়ের কাছে সামী উল ইসলাম শামীম নামে একজন সাড়ে ৫ বিঘা লিচু বাগানের মাঝে পেঁপের চাষ করছেন। তার বাগানে পেঁপের ভালো ফলন হয়েছে। আমরা নিয়মিত তার পেঁপের বাগান পরিদর্শন করছি এবং পরামর্শ দিয়ে আসছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকঃ শারমিন আক্তার, প্রকাশকঃ মোঃ এনামুল হক, হুজাইফা এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড কর্তৃক চৌধুরী মল ৪৩, শহীদ নজরুল ইসলাম সড়ক (হাটখোলা রোড), টিকাটুলি, ঢাকা-১২০৩ হতে প্রকাশিত। ফোন-ফ্যাক্স: ৭১২৫৩৮৬। । ই-মেইল: tatkhonik@gmail.com