বয়াম মানব আজিজুর

খুলনা শহরের গলিপথে শরীরের সঙ্গে প্লাস্টিকের ছোটো-বড়ো ২০টি বয়াম (জার) বেঁধে হাঁটছিলেন যুবক। বয়ামে রাখা আতর, টুপি, তাসবিহ, মিসওয়াকসহ নানা মালামাল। সবই বিক্রির জন্য।

৩৫-৩৬ বছর বয়সের যুবকটি অন্ধ। নাম মো. আজিজুর রহিম। ছোট বেলা থেকেই পৃথিবীর আলো দেখা থেকে বঞ্চিত। দু’ বছর বয়স থেকেই দু’ চোখ অন্ধ তার। কিন্তু ভিক্ষার পথ নয়, এভাবে শরীরে মালামাল বেঁধে তা বেচেই জীবিকা নির্বাহ করছেন।

দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর ধরে এভাবেই শরীরে বয়ামগুলো বহন করছেন তিনি। এ কারণে অনেকে তাকে ‘বয়াম মানব’ বলেও চেনেন। তিনি জানান, তিনি নাকি সুন্নতি ব্যবসা করছেন। এ কারণে, অন্ধ বলে কেউ ঠকালেও তার কোনো লস নেই।

আজিজুর রহিম খুলনা মহানগরীর পশ্চিম টুটপাড়া এলাকায় পৈত্রিক ভূমিতে বসবাস করেন। বাবা মো. আকতার উদ্দিনের বিদ্যুৎ বিভাগে চাকরির সুবাদে ও জন্মসূত্রে খুলনায় বসবাস তাদের। আট ভাই-বোনের মধ্যে তিনি ৬ষ্ঠ সন্তান।

অন্ধ হলেও আজিজুর রহিম শিক্ষিত। নগরীর গোয়ালখালি অন্ধ বধির সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করেন। এরপর সরকারি বোডিং (হোস্টেল) এ থেকে নড়াইল তুলারামপুর উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ২০০৮ সালে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন। এইচএসসিতে ভর্তি হন নগরীর দৌলতপুরস্থ ডে-নাইট কলেজে। কিন্তু আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে আর সামনে এগোতে পারেননি। ইতি টানতে হয় লেখাপড়ার। এরপর দু’ বছর ঘরে বসেই সময় কাটান। এভাবে বসে না থেকে ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ক্ষুদ্র পরিসরে ব্যবসার উদ্যোগ নেন তিনি। ২০১০ সাল থেকেই শুরু হয় তার ব্যবসার যাত্রা। যা এখনও চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকঃ শারমিন আক্তার, প্রকাশকঃ মোঃ এনামুল হক, হুজাইফা এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড কর্তৃক চৌধুরী মল ৪৩, শহীদ নজরুল ইসলাম সড়ক (হাটখোলা রোড), টিকাটুলি, ঢাকা-১২০৩ হতে প্রকাশিত। ফোন-ফ্যাক্স: ৭১২৫৩৮৬। । ই-মেইল: tatkhonik@gmail.com