স্বপ্ন পূরণ হলো না রেশমার

সাইক্লিং করার সময় রাজধানীর সংসদ ভবন এলাকার চন্দ্রিমা উদ্যান সংলগ্ন লেক রোডে প্রাইভেটকার চাপায় নিহত হয়েছেন পর্বতারোহী রেশমা নাহার রত্না (৩৩)। গান, আবৃত্তি, বইপড়া, সাইকেল চালানো ভীষণ পছন্দ হলেও রেশমা নাহারের স্বপ্ন ছিল নিজেকে পর্বতারোহী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা। একদিন এভারেস্টের চূড়ায় ওঠা। কিন্তু গাড়িচাপায় সেই স্বপ্ন শেষ হয়ে গেল। শুক্রবার (৭ আগস্ট) সকালে জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় গাড়িচাপায় প্রাণ হারিয়েছেন তিনি। রেশমার বন্ধুরা জানিয়েছেন, এভারেস্ট জয় করার অদম্য ইচ্ছে ছিল তার। সেই স্বপ্ন কেড়ে নিয়েছে ঘাতক মাইক্রোবাস।

শেরে বাংলা নগর থানার ওসি মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, সকাল ৮টা ৫০ মিনিটের দিকে রেশমা সংসদ ভবন এলাকার চন্দ্রিমা উদ্যানের লেক রোড ধরে গণভবনমুখী সড়কে দিয়ে এগোচ্ছিলেন। চন্দ্রিমায় ঢোকার ব্রিজের সামনের সড়কে একটি মাইক্রোবাস তাকে চাপা দেয়। এতে তার মাথায় আঘাত লাগে। পথচারীরা উদ্ধার করে তাকে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

যে মাইক্রোবাসটি রেশমাকে চাপা দিয়েছে, তার হদিস এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি বলে জানান ওসি। ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করা হচ্ছে। সেটা দেখে গাড়ি শনাক্ত করা হবে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা। রেশমা রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকার আইয়ুব আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করতেন। তার বাড়ি নড়াইলে। তিনি ঢাকায় মিরপুর এলাকায় থাকতেন।

২০১৯ সালের ২৪ আগস্ট ভারতের লাদাখে অবস্থিত স্টক কাঙরি পর্বত এবং ৩০ আগস্ট কাং ইয়াতসে-২ পর্বতে সফলভাবে আরোহণ করেন রত্না। দুটি পর্বতই ছয় হাজার মিটারের বেশি উচ্চতার। এরপর ২০১৮ সালে আফ্রিকার উচ্চতম পর্বত মাউন্ট কিলিমানজারো ও দ্বিতীয় উচ্চতম পর্বত মাউন্ট কেনিয়া অভিযানে অংশগ্রহণ করেন।

২০১৬ সালে বাংলাদেশের পাহাড় কেওক্রাডংয়ের চূড়া স্পর্শ করার মাধ্যমে শুরু হয় রেশমা রত্নার অভিযান। ওই বছরই মৌলিক প্রশিক্ষণের জন্য ভারতের উত্তরাখণ্ডের উত্তরকাশিতে অবস্থিত পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান নেহেরু ইনস্টিটিউট অব মাউন্টিইনিয়ারিংয়ে যান তিনি। কিন্তু অ্যাডভ্যান্স বেজক্যাম্পে যাওয়ার পর তার পায়ে ফ্র্যাকচার হয়। দেশে ফেরার পর সুস্থ হতে লেগে যায় দীর্ঘদিন। পরবর্তী সময়ে নিজ উদ্যোগে সফলভাবে পর্বতারোহণের মৌলিক ও উচ্চতর প্রশিক্ষণ নেন তিনি।

পর্বতারোহী ও সাইক্লিস্ট উদ্যমী এই তরুণী বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের লাইব্রেরি, আলোর ইশকুলের কর্মসূচি, পাঠচক্রসহ নানা উদ্যোগে যুক্ত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকঃ শারমিন আক্তার, প্রকাশকঃ মোঃ এনামুল হক, হুজাইফা এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড কর্তৃক চৌধুরী মল ৪৩, শহীদ নজরুল ইসলাম সড়ক (হাটখোলা রোড), টিকাটুলি, ঢাকা-১২০৩ হতে প্রকাশিত। ফোন-ফ্যাক্স: ৭১২৫৩৮৬। । ই-মেইল: tatkhonik@gmail.com