৩ দিনে ভ্যাট রিটার্ন থেকে আদায় ১৬৮২ কোটি টাকা

তিনদিনে সারা দেশে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট/মূসক) রিটার্নের মাধ্যমে এক হাজার ৬৮২ কোটি ৮২ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। মোট ১৩ হাজার ২২১টি রিটার্ন দাখিল হয়েছে।

মহামারি করোনাভাইরাস প্রাদূর্ভাবের মধ্যে ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে ভ্যাট রিটার্ন দাখিলের জন্য ভ্যাট সার্কেল অফিস খোলা রাখে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ।

তৃতীয় দিন মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) সারা দেশের ২৫২টি ভ্যাট সার্কেলে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টার পর‌্যন্ত রিটার্ন জমা, রাজস্ব আহরণ ও ভ্যাট সেবা দেওয়া হয়।

এনবিআরের জনসংযোগ দপ্তর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এনবিআর জানায়, তৃতীয় দিন পহেলা বৈশাখের কারণে ব্যাংক বন্ধ থাকায় রাজস্ব আহরণ ও রিটার্ন দাখিল কিছুটা কমেছে। তবে মঙ্গলবার যারা জমা দিতে পারেননি, তাদের বেশিরভাগ শেষদিন বুধবার জমা দেবেন বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। এদিন গত তিনদিনের চেয়ে বেশি রাজস্ব আহরণ ও রিটার্ন দাখিল হবে বলে আশা করছেন তারা।

মঙ্গলবার মোট রিটার্ন দাখিল হয়েছে তিন হাজার ৬৮৩টি। আর রাজস্ব আহরিত হয়েছে ২৮৭ কোটি ২১ লাখ টাকা। এছাড়া গত তিনদিনে সারা দেশে মোট ১৩ হাজার ২২১টি রিটার্ন দাখিল হয়েছে। আর রাজস্ব আহরিত হয়েছে এক হাজার ৬৮২ কোটি ৮২ লাখ টাকা।

সূত্র আরো জানায়, এলটিইউসহ সারা দেশে ১২টি ভ্যাট কমিশনারেট রয়েছে। আর ভ্যাট সার্কেল রয়েছে ২৫২টি। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি রাজস্ব আহরিত হয় বৃহৎ করদাতা ইউনিট (এলটিইউ)-মূল্য সংযোজন। এলটিইউসহ ১২টি কমিশনারেটে তিনদিনে মোট রাজস্ব আহরিত হয়েছে এক হাজার ৬৮২ কোটি ৮২ লাখ টাকা।

যার মধ্যে এলটিইউতে আহরিত হয় ৯৩২ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। এলটিইউতে প্রথমদিন ১২ এপ্রিল ১৫টি রিটার্ন দাখিল হয়। রাজস্ব আহরিত হয় ৬৬ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। দ্বিতীয় দিন ১৩ এপ্রিল ২১টি রিটার্ন দাখিলের বিপরীতে রাজস্ব আহরিত হয় ৬৪২ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। আর তৃতীয় দিন মঙ্গলার ২৩টি রিটার্ন দাখিলের বিপরীতে রাজস্ব আহরিত হয় ২২৩ কোটি ৩৪ লাখ টাকা।

সূত্র আরো জানায়, প্রথমদিন ১২ এপ্রিল সারা দেশে চার হাজার ২৫১টি ভ্যাট রিটার্ন দাখিল হয়। আর রাজস্ব আহরিত হয় ৩৩৬ কোটি ৪১ লাখ টাকা। দ্বিতীয়দিন ১৩ এপ্রিল ৫ হাজার ১৩টি ভ্যাট রিটার্ন দাখিল ও রাজস্ব আহরিত হয় এক হাজার ১৭০ কোটি ৮৩ লাখ টাকা।

অর্থাৎ প্রথম দিনের চেয়ে দ্বিতীয় দিন ৭৭২টি রিটার্ন বেশি দাখিল হয়েছে। আর রিটার্ন প্রাপ্তির প্রবৃদ্ধি ১৮ শতাংশ। রাজস্বের দিক থেকে প্রথম দিনের চেয়ে দ্বিতীয় দিন ৭৩৪ কোটি ৪২ লাখ টাকা বেশি আহরিত হয়েছে, যার প্রবৃদ্ধি ১৬৮ শতাংশ।

সূত্র জানায়, প্রতিটি সার্কেল অফিসে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশ কঠোরভাবে পালন করা হয়। এসময় প্রতিটি সার্কেলে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধের সব ধরনের নিয়ম পালন করা হয়। বিশেষ করে কর্মকর্তারা পিপিই পরিধান করে রিটার্ন জমা নেয়। আর করদাতাদের প্রবেশে হাত ধোয়া, স্যানিটাইজার ব্যবহারের ব্যবস্থা রাখা হয়। জনসমাগম এড়াতে রিটার্ন দাখিল শেষে দ্রুত অফিস ত্যাগ করতে বলা হয়।

এনবিআর সূত্র জানায়, সরকারি নির্দেশনার কারণে ২৫ মার্চ থেকে প্রায় সব প্রতিষ্ঠান শাটডাউনে রয়েছে। কিন্তু নতুন মূসক আইন অনুযায়ী, প্রতিমাসের ১৫ তারিখের মধ্যে রিটার্ন জমা না দিলে ১০ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে। করদাতাদের জরিমানা এড়াতে ও আইনি বাধ্যবাধকতা থাকায় এনবিআর শুক্রবার (৯ এপ্রিল) ভ্যাট রিটার্নের বিষয়ে নির্দেশনা জারি করে।

ভ্যাট আইন অনুযায়ী প্রতি মাসের ১৫ তারিখের মধ্যে ভ্যাট রিটার্ন দাখিলের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সে লক্ষ্যে এনবিআর শুধুমাত্র ভ্যাট রিটার্ন দাখিলের সুবিধার্থে সরকারি সাধারণ ছুটির সময়ে সীমিত আকারে ভ্যাট সার্কেল অফিসসমূহ ১২ থেকে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টার মধ্যে রিটার্ন দাখিল করা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

সম্পাদকঃ শারমিন আক্তার, প্রকাশকঃ মোঃ এনামুল হক, হুজাইফা এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড কর্তৃক চৌধুরী মল ৪৩, শহীদ নজরুল ইসলাম সড়ক (হাটখোলা রোড), টিকাটুলি, ঢাকা-১২০৩ হতে প্রকাশিত। ফোন-ফ্যাক্স: ৭১২৫৩৮৬। । ই-মেইল: tatkhonik@gmail.com