সর্বশেষ সংবাদ
Home / সারাদেশ / মাদক-জঙ্গিবাদ-যানজট নিরসনে জিএমপি কমিশনারের চ্যালেঞ্জ

মাদক-জঙ্গিবাদ-যানজট নিরসনে জিএমপি কমিশনারের চ্যালেঞ্জ

গাজীপুর মহানগর পুলিশের নবনিযুক্ত কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান মাদক, সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ ও যানজট নিরসনের চ্যালেঞ্জ ঘোষণা করেছেন। এসব ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্সনীতি অনুসরণ করবেন বলে জানান তিনি।

এছাড়া আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য জিএমপির পক্ষ থেকে কী পদক্ষের নেয়া যায়, সে বিষয়ে সাংবাদিকদের কাছে মতামত চান জিএমপির নবনিযুক্ত কমিশনার।

মঙ্গলবার সকালে গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার তার সদর দফতরের সভাকক্ষে গাজীপুরে কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

ওয়াই এম বেলালুর রহমান বলেন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকার জন্য মাদক হলো সবচেয়ে বড় সমস্যা। আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে নগরবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই মাদকের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর যে জিরো টলারেন্স নীতি আছে সেটা শতভাগ এখানে অনুসরণ করা হবে। কোনো প্রকার এখানে ছাড় দেয়া হবে না। মাদকের সঙ্গে পুলিশ কর্মকর্তারা যদি জড়িত থাকেন তারাও ছাড় পাবেন না।

তিনি বলেন, মাদকের পরের সমস্যাটি হলো যানজট। সবার সহযোগিতায় যানজট নিরসন করব। বিভিন্ন স্থানের অবৈধ পার্কিং, ফুটপথ দখলমুক্ত করব। মহাসড়কে কাগজ চেকিং করার নামে পুলিশি হয়রানি এবং চাঁদাবাজি বন্ধে আমি বদ্ধপরিকর।

তিনি আরও বলেন, সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে জঙ্গিবাদ অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আমার অবস্থান থাকবে সুদৃঢ়। এ ক্ষেত্রেও প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স টু টেরোরিজম বিষয়টি মাথায় রেখে কাজ করব।

পুলিশ কমিনার বলেন, গাজীপুরে আমি এখানে পুলিশের হারানো ইমেজ ফিরিয়ে আনতে সচেষ্ট থাকব। সরকার পুলিশের ইমেজ বিল্ডআপ করার জন্য ব্যাপকভাবে জোর দিয়েছেন।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক আমজাদ হোসেন, গাজীপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি খাইরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক রাহিম সরকার, সাবেক সভাপতি মুকুল কুমার মল্লিক, নাসির আহেমদ, আবুল হোসেন, মাজহারুল ইসলাম মাসুম, মোস্তাফিজুর রহমান টিটু, মুজিবুর রহমান, আমিনুল ইসলাম, মঞ্জুর হোসেন মিলন, মাহমুদা সিকদার প্রমুখ।

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মাহবুব রহমান, উপপুলিশ কমিশনার কেএম আরিফুর রহমান, শরিফ আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন গঠনের প্রায় ৪ বছর পর ২০১৭ সালের অক্টোবরে গঠিত হয় গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি)। এর প্রায় ১০ মাস পরে ২০১৮ সালের ৯ সেপ্টেম্বর জিএমপি লোগো চূড়ান্ত করা হয়েছে। জিএমপি হলো দেশের সপ্তম মেট্রোপলিটন পুলিশ।

জিএমপিতে আটটি থানায় ১১৫২ জনের লোকবলও নির্ধারণ করা হয়েছে। আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জিএমপির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছাত্রলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছাত্রলীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ৫ আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে ...

Skip to toolbar